Responsive image
Print Friendly, PDF & Email

সাগরে খুলছে সম্ভাবনার দ্বার

Published : জানুয়ারি ৮, ২০১৭ at ৬:৫৯ অপরাহ্ণ
Print Friendly, PDF & Email

editorialবঙ্গোপসাগর শুধু বিশাল জলরাশি নয়, এর জলে ও তলদেশে ছড়িয়ে রয়েছে প্রাণিজ ও অপ্রাণিজ সম্পদের বিশাল ভা-ার। স্বাধীনতা পরবর্তী চার দশক পর্যন্ত বাংলাদেশ সেদিকে খুব একটা চোখ ফেরাতে পারেনি। কারণ বঙ্গোপসাগরের অধিকার নিয়ে পার্শ্ববর্তী দেশ মিয়ানমার ও ভারতের সঙ্গে বিরোধ চলছিল। ২০০৯ সালে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন সরকার মতায় এসে সীমানাবিরোধ নিষ্পত্তির কার্যকর উদ্যোগ নেয়। তারই ফলস্বরূপ আন্তর্জাতিক আদালতের মাধ্যমে ২০১২ সালে মিয়ানমারের সঙ্গে ও ২০১৪ সালে ভারতের সঙ্গে বিরোধ নিষ্পত্তি হয়। বাংলাদেশ এক লাখ ১৮ হাজার ৮১৩ বর্গকিলোমিটার জলসীমায় অর্থনৈতিক কর্মকা- পরিচালনার একচ্ছত্র অধিকার পায়। শুরু হয় নানা ধরনের অনুসন্ধান কার্যক্রম। অল্প দিনেই পাওয়া যায় বিপুল সম্ভাবনার হাতছানি। অনুসন্ধানের ভিত্তিতে তৈরি প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকার বেশ কিছু স্থানে মূল্যবান ইউরেনিয়াম ও থোরিয়াম রয়েছে। এখন সেগুলোর বাণিজ্যিক আহরণের সম্ভাব্যতা যাচাই করা হচ্ছে। এ ছাড়া বাংলাদেশ ও জার্মানির যৌথ জরিপে অগভীর সমুদ্রের ১৩টি স্থানে সন্ধান মিলেছে ভারী খনিজ বালুর। এই বালু ইলমেনাইট, গার্নেট, সিলিমানাইট, জিরকন, রুটাইল ও ম্যাগনেটাইটসহ বিভিন্ন মূল্যবান খনিজসমৃদ্ধ। ৩০ থেকে ৮০ মিটার গভীরতায় বেশ কিছু স্থানে একধরনের কের সন্ধান পাওয়া গেছে, যা সিমেন্টশিল্পের অন্যতম কাঁচামাল। বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, এই কে আহরণ করা গেলে বাংলাদেশের সিমেন্টশিল্পে বিপ্লব ঘটে যাবে। এদিকে প্রাণিজ সম্পদ অনুসন্ধান ও সঠিক পরিসংখ্যান পাওয়ার ল্েযও বাংলাদেশ সরকারের নিজস্ব অর্থায়নে ব্যাপক অনুসন্ধান কাজ শুরু করেছে অত্যাধুনিক গবেষণা জাহাজ ‘আরভি মীন সন্ধানী’। আশা করা হচ্ছে, এখানেও শিগগিরই বড় ধরনের সুখবর পাওয়া যাবে। ধারণা করা হচ্ছে, বাংলাদেশের জলসীমায় গ্যাসেরও ব্যাপক মজুদ রয়েছে। কয়েকটি ব্লক বিদেশি বিভিন্ন কম্পানির কাছে ইজারাও দেয়া হয়েছে। কিন্তু তাদের কাজে ধীরগতির অভিযোগ রয়েছে। ফলে এখনো সেগুলোতে বড় কোনো সাফল্য আসেনি। অথচ এরই মধ্যে মিয়ানমার বাংলাদেশের জলসীমার কাছেই বড় গ্যাসত্রে আবিষ্কার করেছে। এ রকম পরিস্থিতিতে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, আমাদের নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় গ্যাস অনুসন্ধান জরুরি হয়ে পড়েছে। স্থলভাগের মতোই জলভাগও যেকোনো দেশের অর্থনীতিতে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। অনেক দেশেই সমুদ্র অর্থনীতি বা ব্লু ইকোনমি জাতীয় প্রবৃদ্ধিতে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। বাংলাদেশকেও বঙ্গোপসাগরের অফুরন্ত সম্ভাবনা কাজে লাগাতে হবে। প্রযুক্তিগত দুর্বলতা কাটিয়ে উঠতে হবে। সমুদ্রসম্পদের সুরায় যতœবান হতে হবে।

বিজ্ঞাপন

Poll

[ poll id=1638]
Comilla (Bangladish)
Today
Rainy
Wind : 3.1 km/h
Humidity : 94%
22°C
  • Saturday Tomorrow 22 °C
  • Sunday   22 °C
Weather Layer by www.BlogoVoyage.fr